জানেন কি ছেলেরা কেন বড় ও আকর্ষ*ণীয় স্ত*ন পছন্দ করে?

নারী শরীর নিয়ে কৌতুহলের শেষ নেই। বিশেষত মহিলাদের স্তনযুগলের সুডৌল গড়নে মজেননি, এমন পুরুষ এ দুনিয়ায় খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। আর স্তনযুগলকে কী করে আরও আর্কষণীয় করে তোলা যায়, তা নিয়ে মহিলাদের মাথাব্যথাও কিছু কম নয়।

কেউ স্তনের সৌন্দর্য বাড়াতে অস্ত্রোপচারের করান তো কেউ আবার বিশেষ ধরনের আঁটোসাঁটো অন্তর্বাস পরেন। কিন্তু জানেন কী, অস্ত্রোপচার বা বিশেষ ধরনের অন্তর্বাস কিছুই দরকার নেই, শুধুমাত্র প্রসাধনের সাহায্যেও স্তনযুগলকে আরও আকর্ষণীয় ও মোহময় করে তোলা যায়।

ভাবছেন কী করে? মুখের মেক-আপের জন্য ফাউন্ডেশনে সকলেই ব্যবহার করেন। ফাউন্ডেশন সাধারণত গাঢ় ও হালকা দু’ধরনের শেডের হয়ে থাকে। আর এই দুটি শেড সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারলেই কেল্লা ফতে। আপনার স্তনযুগল হয়ে উঠবে আরও সুন্দর, আরও আবেদনময়।

বস্তুত, সারা বিশ্বেই এখন স্তনকে সুন্দর করে তোলার জন্য ফাউন্ডেশনের ব্যবহারের চল বাড়ছে। এমনকী, কেলি জেনার, কিম কারদেশিয়ানের মতো যেসব সেলিব্রিটিদের স্তনযুগলকে দেখে পুরুষরা মুগ্ধ হয়, তাও কিন্তু এই ফাউন্ডেশনেরই কেরামতি।

নারীত্বের প্রতীক হল স্তন। নারীশরীরের সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিভাজিকা থাকে তাঁদের বক্ষযুগলেই। এই ‘কার্ভ’ নারীর গর্ব, কখনও বা অহংকারও। বিশেষজ্ঞরা বলেন, যে মহিলাদের স্তন সুগঠিত, সুউচ্চ ও ভরাট, তাঁদের দেখে পুরুষদের মনে কামনার স্ফুলিঙ্গ জ্বলে ওঠে।

কিন্তু শুধু যে শারীরিক কারণে পুরুষরা স্তনের প্রতি আকৃষ্ট হয়, এমনটা কিন্তু নয়। এর পিছনে কিছুটা মানসিক কারণও আছে। সন্তান উৎপাদনে সক্ষম মহিলাদের স্তনযুগলসুন্দর হয়, এই ধারণা অতীত থেকেই পুরুষদের মনে বদ্ধমূল হয়ে রয়েছে।

সুডৌল স্তনের অধিকারী মহিলাদেরই সঙ্গী হিসেবে অগ্রাধিকার দেন পুরুষরা। আর তাই তো স্তনযুগলকে সুন্দর করে তুলতে কত কী না করেন মহিলারা।সুতরাং এই পদ্ধতিও ট্রাই করে দেখতেই পারেন।

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *